রাতেই করোনার ২ হাজার কিট চট্টগ্রামে আসছে নওফেলের গাড়িতে

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসের একমাত্র পরীক্ষাগারে অবশেষে কাটতে যাচ্ছে কিট সংকট। নানা টানাপোড়েনের পর শেষ পর্যন্ত শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের হস্তক্ষেপে প্রায় ২ হাজার কিট চট্টগ্রামে আজ বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) রাতেই চট্টগ্রাম এসে পৌঁছাবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছ থেকে সংগ্রহ করে কিটগুলো শিক্ষা উপমন্ত্রী তার নিজের গাড়িতে করেই চট্টগ্রাম পাঠাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) রাতেই মোট ১৯২০টি কিট চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের (বিআইটিআইডি) ল্যাবে হস্তান্তর করা হবে।

জানা গেছে, চট্টগ্রামে কিট সংকটের খবর জেনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে বুধবার থেকেই যোগাযোগ শুরু করেন চট্টগ্রাম-৯ আসনের সংসদ সদস্য ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

এর প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রামের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ১৯২০টি কিট বরাদ্দ দেয়। বিকেল ৩টায় ঢাকার মহাখালীর জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট থেকে এসব কিট সংগ্রহ করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

প্রধানমন্ত্রীর দফতরে জরুরি কাজ থাকায় ব্যক্তিগত গানম্যানকে দিয়েই নিজের গাড়িতে করে কিটগুলো চট্টগ্রাম পাঠানোর ব্যবস্থা নেন তিনি।

এর আগে কিটের আরএমএ এক্সটেনশন ফ্লুইডের অভাবে বিআইটিআইডির ল্যাবে করোনা ভাইরাস পরীক্ষা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সম্ভাবনা দেখা দেয়। এ নিয়ে চট্টগ্রাম প্রতিদিনে একটি সংবাদ প্রকাশিত হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

বিষয়টি নিয়ে আগে থেকেই ব্যক্তিগতভাবে স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালকের (ডিজি) সাথে যোগাযোগ করেন মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। প্রথম দিকে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে আরএনএ কিট না থাকার কথা জানালেও শিক্ষা উপমন্ত্রীর যোগাযোগের পর দ্রুত সময়ের মধ্যেই কিট দেওয়া হয় স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে।

এ বিষয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমি কালকেই (বুধবার) স্বাস্থ্য বিভাগের ডিজির সাথে কথা বলেছি এক্সটেনশন কিটের বিষয়ে। উনি সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরের মধ্যে এই কিটগুলো দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। জরুরি কাজ থাকায় আমি চট্টগ্রামে এগুলো নিয়ে যেতে পারছি না। তাই রিসিভ করে ব্যক্তিগত গানম্যানকে সঙ্গে দিয়ে কিটগুলো চট্টগ্রামে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। কিটগুলোর প্রয়োজনীয় সুরক্ষা দিয়েই আমার গাড়িতে তোলা হয়েছে। আজ (বৃহস্পতিবার) রাতের মধ্যেই এগুলো চট্টগ্রামে বিআইটিআইডি’র ল্যাবে পৌঁছে যাবে।’

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বিপ্লব বড়ুয়াও চট্টগ্রামে পর্যাপ্ত করোনা টেস্ট কিট সরবরাহের জন্য স্বাস্থ্য বিভাগকে অনুরোধ জানিয়েছিলেন।

এছাড়া প্রথম দিকে আইইডিসিআর থেকে আশ্বাস না পেয়ে কক্সবাজার থেকেও কিছু আরএনএ এক্সটেনশন ফ্লুইড আনার উদ্যোগ নেন বিআইটিআইডি’র ল্যাব প্রধান ডা. শাকিল আহমেদ। সেগুলোও বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এসে পৌঁছবে বলে চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে নিশ্চিত করেছেন ডা. শাকিল।

এর ফলে চট্টগ্রামে করোনাভাইরাস শনাক্তের টেস্ট কার্যক্রমে সংকট আপাতত কেটে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।