সাতকানিয়ায় করোনা পজিটিভের বাড়িসহ ৩ বাড়ি লকডাউন

ঢাকায় করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়া চট্টগ্রামের সেই লোকের বাড়ি সাতকানিয়া উপজেলার সোনাকানিয়া ইউনিয়নে। গত সপ্তাহে সোনাকানিয়াতে এক রাত ছিলেনও তিনি। সেখান থেকে ফিরেই করোনা পজিটিভ হওয়া ওই ব্যক্তির বাড়িসহ আশপাশের তিনটি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছে সাতকানিয়া উপজেলা প্রশাসন। অন্য যে দুটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে সেগুলো আক্রান্ত ব্যক্তির প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীর বাড়ি। পাঁচটি বাড়িই পড়েছে সোনাকানিয়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডে।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর-এ-আলমের নেতৃত্বে স্থানীয় থানা ও জনপ্রতিনিধিরা মিলে সোনাকানিয়ার ওই তিন বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেন। লকডাউন হওয়া ৩ বাড়িতে মোট ৫টি পরিবারের বসবাসের কথা জানিয়েছে সাতকানিয়া উপজেলা প্রশাসন।

সাতকানিয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর-এ-আলম বলেন, ‘আজকে চট্টগ্রামের যে একজনের কথা আইইডিসিআর এর সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে তিনি সাতকানিয়ার স্থায়ী বাসিন্দা। নারায়ণগঞ্জ থাকেন তিনি। তবে গত মাসে শেষ দুই দিন তিনি সাতকানিয়াতে ছিলেন। এখান থেকে ফিরে ঢাকাতেই টেস্ট করিয়েছেন তিনি। বর্তমানে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।’

‘যেহেতু গত সপ্তাহে তিনি সাতকানিয়ার সোনাকানিয়া ইউনিয়নে নিজ বাড়িতে একদিন ছিলেন। তাই ওই বাড়ি সহ আশেপাশের ৩ টি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছি আমরা’— যোগ করেন নূর-এ-আলম।

প্রসঙ্গত গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে নতুন করে ৪১ জন করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে বলে ঘোষণা দেয়া আইইডিসিআর। এর মধ্যে চট্টগ্রামেরও একজন রয়েছেন বপেশায় ব্যবসায়ী ৪০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির থাকেন নারায়ণগঞ্জ। তবে ২৯ ও ৩০ মার্চ তিনি সাতকানিয়ার সোনাকানিয়া ইউনিয়নে তার নিজ বাড়িতে ছিলেন।