ফেনী

ফেনীতে হামলার শিকার ব্রাম্মণবাড়িয়া ছাত্রলীগ সভাপতি রুবেল

ফেনীতে হামলার শিকার ব্রাম্মণবাড়িয়া ছাত্রলীগ সভাপতি রুবেল

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সংস্কার কাজ বুঝে নিতে এসে দৃর্বৃত্তদের হামলর শিকার হয়েছেন ব্রাম্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল। বুধবার দুপুরের পর ঘটনাস্থল হতে পুলিশ তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করে।

এ হামলার জন্য ভূক্তভোগী ছাত্রলীগ নেতা রুবেল স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাদের দায়ী করেছেন।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বাস্তবায়নাধিন ১ কোটি ৮৯ লাখ টাকা ব্যয়ে দাগনভূঞা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সংস্কার কাজ পায় ব্রাম্মনবাড়িয়ার নির্মাণ বিল্ডার্স নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

১০ এপ্রিল কার্যাদেশ হাতে পেয়ে বুধবার ফেনীর জনস্বাস্থ্য বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী নজরুল ইসলামকে সাথে নিয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের অংশীদার ছাত্রলীগ নেতা রুবেল কাজ বুঝিয়ে নিতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান।

এসময় মুখে মাস্ক পরা ৮/১০ জন যুবক তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম জানান, আমি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষের রবিউল হক রুবেলকে কাজগুলো বুঝিয়ে দিচ্ছিলাম। এসময় হঠাৎ কয়েকজন যুবক এসে তাকে পেটাতে থাকে। এতে রুবেলের মাথা, ঘাড় ও পায়ের বিভিন্ন স্থানে রক্ষাক্ত জখম হয়।

তাৎক্ষণিক আমিসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কয়েকজন কর্মকর্তা পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পালিয়ে বাঁচি। হামলাকারীরা কে/বা কারা আমরা কিছু জানিনা। বিষয়টি তাৎক্ষণিক উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। সিদ্ধান্ত পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে হামলায় আহত ছাত্রলীগ নেতা ও ঠিকাদার রবিউল হক রুবেল মোবাইল ফোনে জানান, ফেনীতে দীর্ঘদিন একটি অ-লিখিত অন্যায় নিয়ম চলে আসছিলো। এ নিয়মতান্ত্রিক ধারা আমি না বুঝে কাজ করতে যাওয়ায় আমার উপর হামলা হয়েছে।

এ হামলা কারা করেছেন বলে আপনি মনে করেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে রুবেল জানান, কে হামলা করেছে এটা সবাই জানে। নাম বললে দলের উপর পড়বে। আমি বিষয়টি দলীয় উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি। তাদের সিদ্ধান্ত ও পরামর্শের আলোকে এবিষয়ে প্রয়োজনীয় কার্য ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাসান ইমাম জানান, দুপুরের পর অজ্ঞাত কয়েকজন যুবক ঠিকাদারের উপর হামলা করেছে। এমন খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

তিনি মাথায় ও ঘাড়ে মারাত্মক আঘাত পেয়েছেন। তবে এ ঘটনায় কেউ থানায় অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *