বিনোদন

নিখোঁজ হওয়া অভিনেত্রী শিমুর লাশ একদিন পর উদ্ধার

নিখোঁজের হওয়া অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুর মরদেহ একদিন পর কেরানীগঞ্জ থেকে উদ্ধার। জব্দ করা হয় রক্তমাখা গাড়ি। এই ঘটনায় চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অভিনেতা জায়েদ খানকে সন্দেহ করছে শিমুর সহকর্মীরা। যদিও পরিবারের অভিযোগ ভিন্ন।

আবার জায়েদ খানের দাবি শিমু হত্যা ইস্যুতে তাকে ফাঁসানোর চেষ্টা হচ্ছে। শিমুর সহকর্মী প্রডিউসার ফিরোজ শাহী বললেন, ‘কেন ইউটিউবে গিয়ে জায়েদ খানের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়েছিল শিমু, এ কারণে জায়েদ খান শিমুর নামেও মামলা দিয়েছিল।’ একইভাবে অভিনেত্রী তাহমিনা হোসেন বেবি বলেন, একটা সিটের জন্য উনি সব পারবে। না হয় এ রকম কেন হলো বলেন…। ‘উনি (জায়েদ খান) সব পারবে। তুই ‍তুকারি কেন করতে যাবে।’

এ ছাড়াও অভিনেত্রী সাদিয়া মির্জা বলেন, ১৮৪ জন (চলচ্চিত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত) আমরা যারা আছি, তারা কি একার জন্য লড়াই করছি! ‘শিমুর অস্বাভাবিক মৃত্যু, আমরা এটা মানব না। এটা মেনে নেওয়ার মতো না। এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান তার বিরুদ্ধে সন্দেহের বিষয়ে বলেন, ‘তিন-চারটা ছেলেমেয়ে যাদের নাম বলতে হয়- ফিরোজ শাহী ও সাদিয়া মির্জাসহ আরও কয়েকজন। এর মধ্যে সাদিয়া মির্জা নোংরামি শুরু করেছে

ইউটিউবে গেলে দেখা যায় ‘আমাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়েছে জায়েদ খান’ উল্লেখ করে সে ছড়িয়ে দিচ্ছে, আসলে এসব নোংরামির অবসান হওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *