চট্টগ্রামে বিয়েতে খাবার নিয়ে মারামারি, কনে ছাড়াই বাড়ি ফিরল বর

ঠিকমতো চলছিল বিয়ের অনুষ্ঠান। ৩০০ বরযাত্রীর মধ্যে ভাত খেয়েছেন ২৮০ জনের মতো। শুধু বাকি আছেন বরের মা, বর ও তার সঙ্গীরা। কিন্তু বাকিদের খাবার দিতে একটু দেরি হওয়ায় ক্ষেপে যান বরের ভাই সোহেল। এরপর শুরু হয় কথা কাটাকাটি। কথা কাটাকাটি রূপ নেয় মারামারিতে। মারামারি দেখে হঠাৎ গরম হয়ে বিয়ের আসর থেকে কনে না দিয়ে বাড়ি ফিরে যায় বর।

পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন পুলিশও। এমই ঘটনা ঘটেছে শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার তৈলারদ্বীপ এলাকার আল আমিন কমিউনিটি সেন্টারে।

উপজেলার মহতরপাড়া গ্রামের রবিউল হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ রুবেল আর বাঁশখালী উপজেলার বেলগাঁও গ্রামের আবদুল মোতালেবের মেয়ে শাবনুর আকতারের বিয়ে ঠিক হয়। তবে বিয়ের দিন বিকাল ৩টায় ক্লাবে আসেন বর।

বরের ভাই মোহাম্মদ সোহেল বলেন, ‌‘ভাত দিতে দেরি হওয়ায় আমার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে।’

কনের স্বজনরা জানান, ‘এ ধরনের ঘটনা কারো কাম্য নয়। খাবারের জন্য এ ধরনের কাজ করতে পারে এটা কেউ আশা করিনি। বরকে ভাত দিতে একটু দেরি হওয়ায় সোহেল এ ঘটনা ঘটিয়েছে। কয়েক জনকে মেরে আহত করেছে। ওদের আচরণ দেখে আমরা মেয়ে দিইনি। বিয়েতে প্রায় ৫ লাখ টাখাবার নিয়ে মারামারি, কনে ছাড়াই বাড়ি ফিরল বরকা খরচ হয়েছে।’

আনোয়ারা থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক শামসুজ্জামান বলেন, ‘বিয়েতে মারামারি খবর পেয়ে দ্রুত গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। এ ঘটনায় দু’পক্ষকে থানায় আসার জন্য বলা হয়েছে। তবে কোনো পক্ষ লিখিত অভিযোগ করেনি।’