মিরসরাইয়ে ৩ বাড়ি লকডাউন, ১৬ জনের নমুনা সংগ্রহ

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে করোনায় প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার ১০ দিন পর দ্বিতীয় রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তিনি গত ২১ এপ্রিল শ্বাসকষ্ট নিয়ে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন এবং একইদিন তার নমুনা সংগ্রহ করে ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ট্রপিক্যাল ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) এ পাঠানো হয়।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) রাতে মিরসরাইয়ের ওই যুবকের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত কেরেছেন চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি।

জানা গেছে, করোনা আক্রান্ত যুবক (৩০) মিঠানালা ইউনিয়নের পাত্তার পুকুর এলাকার বাসিন্দা। পেশায় তিনি একজন প্রাইভেটকার চালক। গাড়িচালক হওয়ায় তিনি অন্যের মাধ্যমে সংক্রমিত হতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত ১৮ এপ্রিল বাড়ির পাশে ফুটবল খেলে সন্ধ্যায় বাড়িতে আসার পর থেকেই তিনি অসুস্থতাবোধ করেন। পরে তাকে আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া যুবকের বাড়ি ও তার গাড়ির সহকারীর বাড়ি এবং তাকে চট্টগ্রাম শহরে নিয়ে যাওয়া ওই গাড়ি চালকের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এছাড়া তিন বাড়ির ১৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৮ এপ্রিল উপজেলার খৈয়াছড়া ইউনিয়নের নিজতালুক গ্রামে প্রথম এক নারী করোনা শনাক্ত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন।