দাগনভুঞাতে কৃষি জমির মাটি কাটায় ৭৫ লাখ টাকা মূল্যের স্কেবেটার ধ্বংশ

নিজস্ব প্রতিনিধি-ঃ ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের কোরাইশমুন্সী বাজার সংলগ্ন কৃষি জমি থেকে মাটি কাটার অপরাধে মঙ্গলবার দুপুরে তিনটি  স্কেবেটারে আগুন দিয়ে ধ্বংস করেছে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও দাগনভূঞা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: মোজাম্মেল হক চৌধুরী। ধ্বংসকৃত তিনটি স্কেবেটারে আনুমানিক মূল্য ৭৫ লাখ টাকা।

আদালত সূত্র জানায়, গত কয়েকদিন ধরে রাজাপুর ইউনিয়নের কোরাইশমুন্সী বাজারের পাশে উত্তর আবদুননবী, লতিফপুর ও নন্দীগাঁও গ্রাম থেকে কৃষি জমির মাটি বিক্রি করা হচ্ছে বিভিন্ন ইট ভাটায়। এতে কৃষি জমির উর্বরতা শক্তি হারিয়ে ফেলছে। ফলে অনেক জমি চাষাবাদের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এর ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও দাগনভূঞা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: মোজাম্মেল হক চৌধুরী সেখানে অভিযান চালায়।

এসময় উত্তর আবদুননবী গ্রামে মাটির দালাল কাজী সায়েমের জমিতে অভিযান পরিচালনা করে কাজী সায়েমসহ স্কেবেটার মেশিন চালাকরা পালিয়ে যায়।পরে ভ্রাম্যমান আদালত মাটিকাটা কাজে ব্যবহৃত স্কেবেটার মেশিনটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

একইসময় লতিফপুর গ্রামে রাজাপুর বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রের সামনে আবু সুফিয়ানের জমিতে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেখানেও ট্রাক্টর চালক, স্কেবেটার চালক ও শ্রমিকরা ম্যাজিস্ট্রেট দেখে পালিয়ে যায়।

পরে এ সময় ভ্রাম্যমান আদালত মাটিকাটা কাজে ব্যবহৃত স্কেবেটার মেশিনটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়।একই সময় পাশ্ববর্তী নন্দীগাঁও গ্রামেও একই চিত্র পাওয়া যায়। সেখানেও স্কেভেটর মেশিনে আগুন ধরিয়ে দেয়।স্কেবেটারের মালিকরা জানান,ধ্বংসকৃত তিনটি স্কেবেটারের মূল্য ৭৫ লাখ টাকা।

অভিযানে কোরাইশমুন্সী পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই নিখন চাকমাসহ পুলিশ সদস্যরা অংশগ্রহন করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও দাগনভূঞা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: মোজাম্মেল হক চৌধুরী জানান, কৃষি জমির যেখানে মাটি কাটা হবে সেখানে অভিযান অব্যাহত থাকবে।